ঘূর্ণিঝড় বুলবুল এর সর্বশেষ সকল তথ্য

যেভাবে এগোচ্ছে বুলবুল

রাতে আঘাত হানবে বুলবুল

>> আগে ধারণা করা হচ্ছিল, শনিবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশ উপকূলে আঘাত হানবে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল। তবে বিকালে আবহাওয়া অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা বলছেন, এটি বাংলাদেশ উপকূলে আসতে মধ্যরাতও লেগে যেতে পারে।

>> আগে ধারণা করা হচ্ছিল, বাংলাদেশে আঘাত হানার সময় এর কেন্দ্রে বাতাসের গতিবেগ ১৫০ কিলোমিটার পর্যন্ত উঠবে;এখন বলা হচ্ছে, ঝড়ো হাওয়া বইতে পারে ১০০ থেকে ১২০ কিলোমিটার বেগে।

>> বিকাল ৩টায় ঘূর্ণিঝড়টি মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ২৪০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ২৭৫কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৪৪৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে ও কক্সবাজার থেকে ৪৪৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছিল।

চট্টগ্রামে বিমান ওঠানামা ১৪ ঘণ্টা বন্ধ

>> ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের কারণে চট্টগ্রাম শাহ আমানত আর্ন্তজাতিক বিমানবন্দরে বিমান ওঠানামা শনিবার বিকাল থেকে ১৪ ঘণ্টা বন্ধ থাকছে। তবে বরিশাল, যশোর ও কক্সবাজার বিমানবন্দরে কাজ বন্ধ নেই।

৮-১২ কিলোমিটার গতিতে এগোচ্ছে বুলবুল

>> ঘূর্ণিঝড় বুলবুল শনিবার দুপুর ১২টায় মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ২৮০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৩১৫ কিমোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৪৭৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং কক্সবাজার থেকে ৪৭০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছিল।

>> আবহাওয়াবিদ আব্দুর রহমান বলেছেন, “প্রতি ঘণ্টায় গড়ে ৮-১২ কিলোমিটার করে এগোচ্ছে বুলবুল। ২-৩ ঘণ্টার মধ্যে উপকূলের কাছাকাছি আরও কাছাকাছি আসবে। এর প্রভাবে ঝড়ো হাওয়ার বেগও বাড়বে। সন্ধ্যা নাগাদ খুলনা উপকূল অতিক্রম করতে পারে ঝড়টি।”

>> অতি প্রবল এই ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রে বাতাসের গতিবেগ ঘণ্টায় ৭৪ কিলোমিটার, যা ১৩০ কিলোমিটার থেকে ১৫০ কিলোমিটার পর্যন্ত বাড়ছে।

১১ নভেম্বরের পরীক্ষাও স্থগিত

>> ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের কারণে ১১ নভেম্বরের জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা স্থগিত করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এর আগে শনিবারের পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছিল। ফলে ঝড়ের কারণে দুই দিনের পরীক্ষা পেছাল।

সরানো হচ্ছে ১৮ লাখ মানুষকে

>> ঝুঁকিপূর্ণ ১৮ লাখ মানুষকে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান। দুপুর নাগাদ ৩ লাখকে আশ্রয় কেন্দ্রে নেওয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

সব ব্যবস্থা নেওয়া আছে: প্রধানমন্ত্রী

>> ঢাকায় শ্রমিক লীগের সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলা করার জন্য, মানুষকে রক্ষা করার জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া আছে। ঝড় পরবর্তী ত্রাণ কাজেও ব্যবস্থাও নেওয়া হয়েছে।

ঝড় আসবে জোয়ারের সময়

>> ঘূর্ণিঝড় বুলবুল যখন উপকূলে আঘাত হানবে, তখন জোয়ার থাকবে বলে জলোচ্ছ্বাস স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি উঁচু হবে বলে সতর্ক করেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

>> ঝড় নিয়ে শনিবার দুপুর ১২টায় এক ব্রিফিংয়ে আবহাওয়াবিদ এ কে এম রুহুল কুদ্দুস বলেন, “ঘূর্ণিঝড়টি যখন উপকূল অতিক্রম করবে তখন জোয়ার থাকবে, ফলে স্বাভাবিকের চেয়ে ৫-৭ ফুট বেশি উচ্চতার ঢেউ থাকবে। জোয়ার শুরু হবে বিকেল ৫টা থেকে, পিক টাইম হবে রাত ৯টা। সুন্দরবন অনেকটাই প্রোটেক্ট করবে। তবে বাতাসের গতিবেগে থাকবে অনেক।”

>> দুপুর ১২টায় বুলবুল মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ৩১০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৩৩৫ কিমোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, চট্টগ্রাম থেকে ৪৯০ কিলোমিটার দক্ষিণ পশ্চিমে অবস্থান করছিল।

স্বাস্থ্য বিভাগে ছুটি বাতিল

>> ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলার প্রস্তুতির অংশ হিসেবে দুর্গত এলাকায় স্বাস্থ্য বিভাগের সব কর্মকর্তার ছুটি বাতিল করা হয়েছে। ১ হাজার ৫৭৭টি মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে।

নিরাপদ স্থানে সরানো হচ্ছে মানুষদের

>> দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিপ্তরের মহাপরিচালক শাহাদৎ হোসেন জানিয়েছেন, ঝুঁকিপূর্ণ সাত জেলাসহ যে সব জেলায় দুর্যোগপূর্ণ বলে চিহ্নিত হয়েছে, সেগুলো থেকে লোকজনকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে।

অনিচ্ছুকদের আশ্রয় কেন্দ্রে নিতে পুলিশ

>> পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মুনিবুর রহমান জানিয়েছেন, ঝুঁকিপূর্ণ এলাকার বাসিন্দাদের আশ্রয় কেন্দ্রে নিতে জনপ্রতিনিধিরা কাজ করছেন। বলার পরও যারা যাচ্ছেন না, তাদের আনতে পুলিশ মাঠে নেমেছে।

বন্দর ছাড়ল সব জাহাজ

>> ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ উপকূলে আঘাত হানার আগে ৯ নম্বর বিপদ সঙ্কেত জারির পর চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরে চার মাত্রার সতর্কতা জারি করেছে কর্তৃপক্ষ। চার মাত্রার সতর্কতা জারির পর চট্টগ্রাম বন্দরের জেটি থেকে সব জাহাজ বহির্নোঙ্গরের দিকে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন বন্দর সচিব ওমর ফারুক।

জরুরি যোগাযোগের নম্বর

>> সম্ভাব্য দুর্যোগ মোকাবেলায় জরুরি তথ্য আদান-প্রদানে সরকারি দপ্তরগুলো কন্ট্রোল রুম খুলেছে।

>> ১০৯০ নম্বরে ফোন করে ঘূর্ণিঝড়ের সর্বশেষ খবর জানা যাবে। বিআইডব্লিউটিএ কন্ট্রোল রুমের মোবাইল নম্বর ০১৯৫৮৬৫৮২১৩।

>> সেন্ট মার্টিন্স দ্বীপে আটকে পড়া পর্যটকদের সাহায্যের জন্য কক্সবাজার জেলা কন্ট্রোল রুমের নম্বর ০১৭১৫৫৬০৬৮৮, টেকনাফের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নম্বর ০১৮৫১৯৬৬৯৬৬।

>> ‘বুলবুল’ সম্পর্কিত সর্বশেষ তথ্যের জন্য তথ্য অধিদপ্তর, ঢাকার সংবাদকক্ষের ৯৫১২২৪৬, ৯৫১৪৯৮৮ টেলিফোন নম্বর।

>> বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড, বরিশাল বিভাগের জন্য যোগাযোগের নম্বর ০১৭৬৬৬৯০৬২১, খুলনা বিভাগের জন্য যোগাযোগের নম্বর ০১৭৬৬৬৯০৩৮৩, চট্টগ্রাম বিভাগের জন্য যোগাযোগের নম্বর ০১৭৬৬৬৯০১৫৩ এবং অতিরিক্ত নম্বর ০১৭৬৬৬৯০০৩৩।

মহাবিপদ সঙ্কেত

>> বুলবুল উপকূলের দিকে ধেয়ে আসার আগে শনিবার সকাল থেকে বাগেরহাটের মোংলা ও পটুয়াখালীর পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ১০ নম্বর মহাবিপদ সঙ্কেত দেখাতে বলা হয়েছে।

>> চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরকে ৯ নম্বর বিপদ সঙ্কেত দেখাতে বলেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। কক্সবাজারে আগের মতোই ৪ নম্বর সতর্কতা সঙ্কেত বহাল রাখা হয়েছে।

>> উপকূলীয় জেলা ভোলা, বরগুনা, পটুয়াখালী, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলো ৭ নম্বর বিপদ সঙ্কেতের আওতায় থাকবে। চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চর ৬ নম্বর বিপদ সঙ্কেতের আওতায় থাকবে।

নৌযান চলাচল বন্ধ

>> চট্টগ্রাম, মোংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরের সব ধরনের কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। সারা দেশে সব ধরনের নৌযান চলাচল পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত বন্ধ রাখতে বলেছে অভ্যন্তরীণ নৌপ‌রিবহন কর্তৃপ‌ক্ষ।

>> ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে সাগর উত্তাল হয়ে ওঠায় বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে।

কখন আঘাত

>> আবহাওয়া অধিদপ্তরের জ্যেষ্ঠ আবহাওয়াবিদ রুহুল কুদ্দুস বলেছেন, অতিপ্রবল এই ঘূর্ণিঝড়টি শনিবার সন্ধ্যা নাগাদ উপকূল অতিক্রম করতে পারে।

>> শুক্রবার সন্ধ্যার পর থেকে ঘণ্টায় মোটামুটি ১৭ কিলোমিটার গতিতে উত্তর দিকে অগ্রসর হচ্ছিল ঘূর্ণিঝড় বুলবুল।

>> উত্তর-উত্তরপূর্বমুখী যে গতিপথ ধরে বুলবুল অগ্রসর হচ্ছে, তার চার পাশে মোটামুটি ২২০ কিলোমিটার ব্যাসার্ধে অনুভূত হবে ঘূর্ণিবায়ুর তাণ্ডব। বিস্তীর্ণ এ অঞ্চলে কয়েক কোটি মানুষের বসবাস।

>> আবহাওয়া অফিস বলছে, ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৭৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ তখন ছিল ঘণ্টায় ১৩০ কিলোমিটার, যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ১৫০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে।

>> তবে উপকূল অতিক্রম করার সময় এর শক্তি কিছুটা কমে আসতে পারে। ভারতীয় আবহাওয়াবিদদের ধারণা ঠিক হলে তখন বাতাসের শক্তি থাকতে পারে ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ১৩৫ কিলোমিটার।

>> ঘূর্ণিঝড় ও চাঁদের আকর্ষণে উপকূলীয় জেলা চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর, বরগুনা, ভোলা, পটুয়াখালী, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা এবং অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরের নিম্নাঞ্চল স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ৫ থেকে ৭ ফুট বেশি উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে।

অবস্থান

ঘূর্ণিঝড়টি শনিবার সকাল ৯টায় মোংলা থেকে ৩৫০ কিলোমিটার দক্ষিণ পশ্চিমে, পায়রা থেকে ৩৮০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছিল। চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে এর দূরত্ব ছিল ৫২৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং কক্সবাজার থেকে ৫১০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে।

প্রস্তুতি

>> খুলনা, সাতক্ষীরা, বাগেরহাট, বরগুনা, পটুয়াখালী, পিরোজপুর ও ভোলা জেলাকে ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা বিবেচনা করে প্রস্তুতি সাজানো হয়েছে। ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচির (সিপিপি) ৫৬ হাজার স্বেচ্ছাসবীকে প্রস্তুত রাখা হয়েছে উদ্ধার ও জরুরি ত্রাণ তৎপরতার জন্য। পাশাপাশি উপকূলীয় সেনা ক্যাম্পগুলোকে সতর্ক রাখা হয়েছে। প্রতিটি জেলায় খোলা হয়েছে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ।

আশ্রয় কেন্দ্রগুলোতে ২০০০ প্যাকেট করে শুকনো খাবার পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। সচেতনতা সৃষ্টির জন্য স্বেচ্ছাসেবকরা মাইকে এবং ২২টি কমিউনিটি রেডিওর মাধ্যমে সতর্কবার্তা প্রচার করছে।

ঘূর্ণিঝড় থেকে নিজের ও পরিবারের জান-মাল রক্ষায় উপকূলীয় নিচু এলাকার বাসিন্দাদের শনিবার দুপুর ২টার মধ্যে নিকটবর্তী আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়ার পরামর্শ দিয়ে সব মোবাইলে এসএমএস পাঠাচ্ছে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ।

>> উপকূলীয় ১৩ জেলার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করে তাদের কর্মস্থলে উপস্থিত থাকতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের সব শাখা খোলা রাখা হয়েছে ত্রাণ ও পুনর্বাসন কার্যক্রম সমন্বয়ের জন্য। সেই সঙ্গে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীকে অফিসে উপস্থিত থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

পরীক্ষা স্থগিত

>> ঝড় এগিয়ে আসায় পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে শনিবারের জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা। জেএসসির স্থগিত পরীক্ষা ১২ নভেম্বর এবং জেডিসির স্থগিত পরীক্ষা ১৪ নভেম্বর হবে।

>> ঘূর্ণিঝড়ের কারণে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শনিবারের সব পরীক্ষাও স্থগিত করা হয়েছে। এ পরীক্ষা কবে নেওয়া হবে তা পরে জানানো হবে।

পশ্চিমবঙ্গে বৃষ্টি

>> ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে শুক্রবার সকাল থেকেই ভারতের পশ্চিমবঙ্গের চব্বিশ পরগনা, পূর্ব মেদিনীপুর-সহ উপকূলীয় জেলাগুলোতে বৃষ্টি হচ্ছে। বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হয়েছে কলকাতাতেও। জলোচ্ছ্বাসের পূর্বাভাস থাকায় দিঘা, মন্দারমণি, শঙ্করপুর, তাজপুর, বকখালির সমুদ্রে নামতে নিষেধ করা হয়েছে পর্যটকদের। চব্বিশ পরগনাসহ কয়েকটি জেলায় স্কুল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

অতিপ্রবল ঘূর্ণিঝড়

>> ১০ বছর আগে পশ্চিমবঙ্গের সাগরদ্বীপ ও সুন্দরবন এলাকায় আঘাত হেনেছিল ঘূর্ণিঝড় আইলা। সেই ঝড়ের শক্তি ছিল বুলবুলের মতোই। বুলবুলের তাণ্ডবে সুন্দরবনের ক্ষতির শঙ্কা উড়িয়ে দিচ্ছেন না ভারতীয় আবহাওয়াবিদরা। উপকূলীয় প্রশাসনকে সেভাবেই সতর্ক করা হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের উদ্ভব

>> সুদূর প্রশান্ত মহাসাগরে সৃষ্ট উষ্ণমণ্ডলীয় ঝড় মাতমো গত অক্টোবরের শেষে ভিয়েতনাম হয়ে স্থলভাগে উঠে আসে। সেই ঘূর্ণিবায়ুর অবশিষ্টাংশই ইন্দোনেশিয়া পেরিয়ে ভারত মহাসাগরে এসে আবার নিম্নচাপের রূপ নেয়।

>> বার বার দিক বদলে নিম্নচাপটি আবার শক্তিশালী হয়ে ওঠে। পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরে এসে বুধবার রাতে তা ঘূর্ণিঝড়ের রূপ নেয়। তখন এর নাম দেওয়া হয় বুলবুল।

>> এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের সাগর তীরের আট দেশের আবহাওয়া দপ্তরের নির্ধারিত তালিকা থেকে ধারাবাহিকভাবে এই অঞ্চলের ঝড়ের নাম দেওয়া হয়। বুলবুল নামটি নেওয়া হচ্ছে পাকিস্তানের প্রস্তাবিত নামের তালিকা থেকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *